কানাডা ভিসার দাম কত টাকা ২০২৪

কানাডা ইউরোপের বাইরের দেশ হয়েও সব দিক থেকে প্রভাবশালী। এখানে উচ্চশিক্ষা, উন্নতমানের চাকরি ও ভ্রমণের জন্য সুন্দর সুন্দর দর্শনিয় স্থানের অভাব নেই। তবে এখানে আসতে খরচ ও ভিসার দাম অনেক। এই দেশে আসতে যত টাকা লাগবে, সেই টাকায় ইউরোপের অন্য দেশেও যাওয়া সম্ভব। ভিসা ক্যাটাগরি, কাজের ধরন ও এজেন্সিদের উপর ভিসার মূল্য নির্ভর করে। সাধারণত এই কানাডা ভিসার দাম ৮ লাখ থেকে ১৫ লাখ টাকা। কানাডা ভিসার দাম কত তা জেনে এই দেশে আসবেন।

কেননা অনেক ভিসা আছে যাদের মূল্য ১৮ থেকে ২০ লাখ টাকা। কম দামে সরকারি ভিসা ও লটারির মাধ্যমে ফ্রি ভিসাও কানাডা আসা যাবে, এছাড়া কাজের জন্য কিছু কমদামী ভিসা আছে। সাধারণ এই সকল ভিসার প্রতি কার কোনো তথ্য জানা নেই। কাজের অভিজ্ঞতা থাকলে ৮ লাখ টাকার মধ্যে কানাডার কিছু জব ভিসা পাওয়া যাবে। এই সকল বিষয়ে জানতে সম্পূর্ণ পোস্ট পড়ুন।

কানাডা ভিসার দাম কত

কানাডায় বেশ কয়েক ধরনের ভিসা আছে। এই সকল ভিসার ধরনের উপর এর দাম নির্ভর করে। সাধারণত কাজের জন্য যে সকল ভিয়া আছে তাদের মূল্য ৮ লাখ থেকে ২০ লাখ টাকা। সাথে শিক্ষাগত যোগ্যতা ও ব্যাংক ব্যালেস এর স্টেটমেন্ট এর প্রয়োজন হবে। উচ্চশিক্ষার জন্য কানাডা আসতে ৩ থেকে ৫ লাখ টাকা লাগবে। যার ভিসার দাম ৩ লাখ টাকা। কানাডার টুরিস্ট বা ভিজিট ভিসার দাম ৫ থেকে ৬ লাখ টাকা।

কানাডায় কাজের জন্য সরকারি ভাবে অনেক ভিসা আছে। এরমধ্যে ওয়ার্ক পারমিট ভিসা একটি। এই ভিসার মূল্য ৪ থেকে ৬ লাখ টাকা। তবে এই ভিসার মূল্য পরিবর্তনশীল। অনেক সময় কলিং ভিসাও সরকারি ভাবে পাওয়া যায়। কলিং ভিসার দাম ৫ থেকে ৭ লাখ টাকা। ৮ থেকে ১০ লাখের মধ্যে কানাডার কাজের জন্য কিছু ভিসা আছে। যেমনঃ কৃষি ভিসা, শ্রমিক ভিসা, লেভার ভিসা, রেস্টুরেন্ট ও হোটেল ভিসা ইত্যাদি। ১০ লাখের মধ্যে কোম্পানি ভিসাও পাওয়া যাবে। কানাডার কোন ভিসার দাম ও খরচ কত টাকা তা জেনে আবেদন করবেন।

কানাডার কাজের ভিসার দাম

কাজের ক্ষেত্রে ভিন্ন টাইপের ভিসা আছে। কাজের মানের উপর এর দাম ও খরচ নির্ভর করে। শিক্ষাগত যুগটার মাধ্যমে কানাডার বড় বড় কোম্পানি বা অফিসে জব ভিসা পাওয়া যাবে। এক্ষেত্রে ১২ থেকে ১৫ লাখের উপরে খরচ হবে। কানাডাতে সাধারণ মানের কাজের ভিসা ১০ লাখের মধ্যে পাওয়া যাবে। তবে এখানে কাজের মান ও বেতন অনেক বেশি। অনেক কাজে শিক্ষাগত যোগ্যতা লাগবে না। তবে কাজের দক্ষতা, অভিজ্ঞতা ও ভাষা জানা থাকা লাগবে। ভাষা জানা থাকলে কাজ পেতে ও কাজ করতে অনেক সুবিধা হবে।

কানাডা ভিসা ক্যাটাগরি ও ভিসার নাম ২০২৪

  1. রেস্টুরেন্ট ভিসার দাম ৭ থেকে ৮ লাখ টাকা
  2. হোটেল ভিসার দাম ৭ থেকে ৮ লাখ টাকা।
  3. কৃষি ভিসার দাম ৮ লাখ টাকা।
  4. ড্রাইভিং ভিসার দাম ৮ থেকে ৯ লাখ টাকা।
  5. ক্লিনার ভিসা দাম ৭ থেকে ৮ লাখ টাকা।
  6. কোম্পানি ভিসার দাম ৭ থেকে ৮ লাখ এবং ১৩ থেকে ১৫ লাখ টাকা।
  7. লেভার ভিসা দাম ৮ লাখ টাকা।
  8. শ্রমিক ভিসার দাম ৮ লাখ টাকা।

আরও অনেক ধরনের কাজ আছে। যার ভিসার দাম ১০ লাখের মধ্যে। তবে এই সকল কাজের জন্য অবশ্যই দক্ষা থাকতে হবে। ভিসা এজেন্সি ও সময়ের সাথে ভিসার দাম পরিবর্তন হতে পারে। এজন্য ধারনা হিসেবে দাম গুলো জেনে নিন।

কানাডার জব ভিসার দাম

কানাডাতে অনেক ধরনের সরকারি ও কোম্পানির জব আছে। এ সকল জবের জন্য উচ্চশিক্ষা এবং অধিক পরিমাণে টাকা লাগবে। কানাডার উঁচুমানের জব ভিসার দাম ১৩ লাখ থেকে ১৫ লাখ টাকা। সাথে শিক্ষাগত যোগ্যতা, সার্টিফিকেট এবং কাজের পূর্বের অভিজ্ঞতা থাকতে হবে। ভিসা এজন্সিদের উপরে ভিসার দাম নির্ভর করে। ভিসা বানানোর পূর্বে বিভিন্ন এজেন্সিদের সাথে যোগাযোগ করবেন। অনেক সময় কানাডার কোম্পানি থেকে জব ভিসার নিয়োগ দেওয়া হয়।

কানাডার টুরিস্ট ভিসার দাম

ভ্রমণের জন্য টুরিস্ট ভিসা বানাতে হবে। যাদের কে ভিজিট ভিসাও বলা হয়। সদস্য সংখ্যা, ভ্রমণের সময় ও ভিসার সময়ের উপর টুরিস্ট ভিসার দাম নির্ভর করে। এই ভিসা গুলো বেশিরভাগ কোম্পানি বা বেসরকারি এজেন্সিদের মাধ্যমে বানাতে হয়। যার কারণে খরচ বেশি লাগে। সাধারণ কানাডার টুরিস্ট ভিসার দাম ৬ লাখ থেকে ৮ লাখ টাকা।

কানাডার স্টুডেন্ট ভিসার দাম

শিক্ষার্থীদের জন্য ভিসার দাম অনেক কম। ৫ থেকে ৬ লাখ টাকার মধ্যে কানাডার স্টুডেন্ট ভিসা পাওয়া যাবে। ফ্রিতেও কানাডার স্টুডেন্ট ভিসা পাওয়া যায়। এজন্য মেধাবী হতে হবে। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান থেকে স্কোলারশীপ পেতে হবে। স্কোলারশীপের মাধ্যমে ২ থেকে ৩ লাখ টাকার মধ্যে কানাডার স্টুডেন্ট ভিসা পাওয়া যাবে। এজন্য শিক্ষাগত যোগ্যতা ও শিক্ষা সংক্রান্ত সার্তিফিকেট লাগবে।

কানাডার ওয়ার্ক পারমিট ভিসার দাম

এটিও এক ধরনের কজার ভিসা। কানাডার কোম্পানি থেকে বা সরকারি ভাবে বাংলাদেশে শ্রমিকের জন্য নিয়োগ করা হয়। এই সকল নিয়োগে অভিজ্ঞ শ্রমিকদের আবেদনের সুযোগ থাকে ৬ থেকে ৭ আলখ টাকার মধ্যে ওয়ার্ক পারমিট ভিসা পাওয়া যাবে। অনেক সময় ৪ থেকে ৫ লাখ টাকাও লাগতে পারে। এটা সম্পূর্ণ ভাবে কানাডার সরকার ও কোম্পানিদের উপর নির্ভর করে। বেশিরভাব সময় ওয়ার্ক পারমিট ভিসা সরকারি ভাবে পাওয়া যায়। যার জন্য খরচ কম। তবে খরচ কম হওয়ায় ভিসা পাওয়া অনেক কষ্টকর। নিজে আবেদন টিকিয়ে ভিসা পেতে হবে।

শেষ কথা

এখানে চাকরি, ভ্রমণ বা শিক্ষালাবের জন্য আসতে ভিসা বানাতে হবেই। কাজের জন্য অনেক ক্যাটাগরির ভিসা আছে। এই সকল ক্যাটাগরি ও কাজের ধরনের উপর ভিসার মূল্য নির্ধারন করা হয়। ভিসার দাম বর্তমানে অনেক বেশি। ভিসা বানার পূর্বে বিভিন্ন এজেন্সি যাচাই করে নিবেন। আশা করছি কানাডা ভিসার দাম কত টাকা এবং কোন ভিসার মূল্য কত তা জানতে পেরেছেন।

আরও দেখুনঃ

কানাডা ভিসা পাওয়ার উপায় ২০২৪

মালয়েশিয়া কলিং ভিসা কবে চালু হবে ২০২৪

মালয়েশিয়া ভিসার দাম কত টাকা ২০২৪

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Scroll to Top